৩০বছরের প্রেম বিবাহের পরিনতি পেল বৃদ্ধাশ্রমে,বিরল ঘটনার সাক্ষী থাকল ভারত!!

0
3215

কলমে কলকাতা ডিজিটাল ডেস্ক–বর্তমান যুগে প্রেমের চাহিদা বাড়ছে। সবাই এখন বাড়ির পছন্দের থেকে নিজেদের পছন্দকে গুরুত্ব দিচ্ছে। তাই বর্তমানে বাড়ছে লাভ ম্যারেজের সংখ্যা!

See more

আরও একটি লাভ ম্যারেজের সাক্ষী থাকল ভারত। কিন্তু এই বিয়ে টা সাধারন বিয়ের থেকে একটু আলাদা।

প্রেমের বন্ধনে আবদ্ধ ষাটোর্ধ দুই টি মানুষের বিবাহ পরিনতি পেল বৃদ্ধাশ্রমে!

30 ডিসেম্বর বিবাহের সময় নির্ধারিত ছিল, কিন্তু পরে এগিয়ে দেওয়া হয়েছিল।
লক্ষ্মী আম্মল তাই সাধারন লাল শাড়ি আর গয়নার জায়গায় চুলে জুই ফুলের মালা পরেই বিবাহে বসেন।

বৃদ্ধাশ্রমের সুপারিনটেনডেন্ট জয়কুমার বলেছিলেন যে শুক্রবার সন্ধ্যায় তার একটি মেহেন্দি অনুষ্ঠানও হয়েছিল।তিনি বলেন, আমরা বিয়ের মন্ডপ সাজিয়েছিলাম এবং সকাল ১১ টায় তারা বিবাহ সম্পন্ন হয়। অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটল এক মহাভোজ দিয়ে।

“এটি ছিল আমার জীবনের অন্যতম আনন্দের মুহূর্ত। কোচানিয়ান এবং লক্ষ্মী আম্মলের বিবাহ প্রত্যক্ষ করা সর্বদা একটি স্মরণীয় অভিজ্ঞতা হয়ে থাকবে।
পরিচালন, সমাজকর্মী, অন্যান্য বন্দি এবং শুভাকাঙ্ক্ষীরা এই বিবাহকে একটি স্মরণীয় করে তুলেছিলেন।


মন্ত্রী সুনীল কুমার ফেসবুকে লিখেছেন, এটি প্রথম এমন বিরল বিবাহ, যা আগে দেখিনি।
.৬৭বছর বয়সী বর এবং.৬৫বছর বয়সের কনের এই ভাবে বিয়ে সত্যিই বিরল।

লক্ষ্মী আম্মল ও কোচানিয়ান একে অপরকে 30 বছর ধরে চেনেন।কোচানিয়ান লক্ষ্মী আম্মলের স্বামীর একজন সহকারী ছিলেন, যিনি ২১ বছর আগে মারা গেছেন।
স্বামীর মৃত্যুর পরে তিনি স্বজনদের সাথে ছিলেন এবং পরে দু’বছর আগে বৃদ্ধাশ্রমে চলে আসেন।কোচানিয়ান দু’মাস আগে একই বৃদ্ধাশ্রমে পৌঁছেছিলেন।

তখন লক্ষ্মী আম্মল বলেছিলেন যে এটি একটি আশীর্বাদ। “আমরা নিশ্চিত যে এই বয়সেও আমরা একসাথেই থাকতে পারব, আমার পাশে সর্বদা কেউ আছেন এটা ভেবেই আমি খুশি।

সত্যি কত বিচিত্র আমাদের এই দেশ ভারত। 🙂

 
Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here