শরীর সুস্থ রাখতে মেনে চলুন এই পাঁচটি নিয়ম

0
21
ইমেজ সোর্স - গুগল

কলমে কলকাতা ডেস্ক – মানব শরীরে পর্যাপ্ত পরিমানে বিশ্রামের দরকার প্রচণ্ড পরিমানে। কিন্তু বর্তমান সময়ে এসে দেখা যাচ্ছে প্রতিটি মানুষই দৈনন্দিন জীবনে নানান ব্যাস্ততার কারনে নিজের শরীরকে পর্যাপ্ত পরিমানে বিস্রাম দিতে পারছে না। আর এই পর্যাপ্ত বিস্রাম যদি একটি মানুষের শরীর দীর্ঘদিন ধরে না পায় তখনই শরীর দুর্বল হয়ে পরে এবং নানান রকমের রোগ ব্যাধির সৃষ্টি হয়। এছারাও অনেক মানুষ নিজের শরীরের জত্ন না নেওয়ার ফলে শরীরে রোগ ব্যাধির সৃষ্টি হয়। কিন্তু আপনি প্রতিদিন যদি এই পাঁচটি নিয়ম মেনে ছলেন তাহলে মুক্তি পাবেন অনেক রোগ ব্যাধি থেকে। চলুন একনজরে দেখে নেওয়া যাক কি সেই নিয়ম।

See more

এ প্রসঙ্গে প্রথমেই বলতে হয় খাদ্যের তালিকায় প্রত্যেকদিন যোগ করতে হবে সবুজ খাদ্য। শরীরকে সুস্থ রাখতে সবুজ খাদ্য দ্রব্য এবং ফলের গুরুত্ব অপরিসীম। টাই প্রত্যেকদিন খাদ্য তালিকায় যোগ করতে হবে জেকন ধরনের শাক সবজি।

দ্বিতীয়ত প্রতিটা দিন কম করে ৪ লিটার বিশুদ্ধ জল খাওয়া প্রত্যেক মানুষেরই দরকার। জল্কে জীবন বলা হয় সেটা সকলেই জানে। কাজেই প্রত্যেকদিন প্রয়োজন মতো জল পান করতে হবে। গরম কালে শরীরকে সুস্থ রাখতে বেশী করে জল পান করা খুবই বেশী জরুরী।

তৃতীয়ত, প্রত্যেক মানুষের শরীরকে সতেজ রাখতে প্রয়োজনীয় বিশ্রামের দরকার। আর আমদের শরীরে এই বিশ্রাম মূলত পাওয়া যায় ঘুমের মাধ্যমে। পর্যাপ্ত পরিমান ঘুমের মাধ্যমেই মানুষের শরীরের সমস্ত ক্লান্তি দূর হয়। কাজেই প্রত্যেকদিন নির্দিষ্ট সময়ে ঘুমান খুবই জরুরী। প্রত্যেকটি মানুষেরই অন্তত ৮ ঘণ্টা করে ঘুমের খুবই প্রয়োজন। যার ফলে মানুষের শারীরিক ক্লান্তির সাথে সাথে মানসিক ক্লান্তিও দূর হয়।

চতুর্থত, মানবদেহ সবল ও সতেজ রাখতে শরীরচর্চার জুরি মেলা ভার। প্রত্যেকদিন প্রত্যেকটি মানুষের নির্দিষ্ট কিছুক্ষন সময় মেনে শরীরের পক্ষে উপযোগী ব্যাম করা দরকার অবশ্যই। সেটা জেকন ধরনের যোগ ব্যাম বা বিভিন্ন শারীরিক কসরতকারি ব্যাম করা যেতে পারে।

আর সর্বশেষ প্রতিটা মানুষের জীবনে হাসিখুশি থাকা ভীষণ রকম প্রয়োজন। একটি মানুষ সর্বক্ষণ হাসিখুশি থাকলে তার শরীর অনেক সতেজ থাকে । কারন আপনি জখনই হাসিখুশি থাকবেন না তখনই আপনার মাথায় নানান রকম চিন্তা ভাবনা আসবে। যার ফলে মানুষ ডিপ্রেশনে চলে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। কাজেই এই নিয়মগুলি মেনে চলুন এবং নিজে সুস্থ থাকুন ও অপরকেও সুস্থ রাখুন।

আরও পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here