করোনাভাইরাস রুখতে পারে ‘গাঁজা’, দাবি কানাডার বিজ্ঞানীদের!

করোনাভাইরাস র ওষুধ পেয়েছেন বলে দাবি করলেন কানাডার একদল বিজ্ঞানী।লেথব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক জানিয়েছেন, গাঁজার এক ধরনের স্ট্রেইনের সন্ধান পেয়েছেন.

0
1813

করোনাভাইরাস থামিয়ে দেয়ার ওষুধ পেয়েছেন বলে চাঞ্চল্যকর দাবি করলেন কানাডার একদল বিজ্ঞানী। দেশটির লেথব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক জানিয়েছেন, গাঁজার এক ধরনের স্ট্রেইনের সন্ধান পেয়েছেন তাঁরা, যার দ্বারা করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধ করা যেতে পারে।

pic- google
See more

শক্তিশালী স্ট্রেইনের গাঁজা মানবদেহে করোনাভাইরাসের প্রবেশ করাকে ৭০-৮০ শতাংশ পর্যন্ত আটকাতে পারে বলে তারা দাবি করেছেন। লেথব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা বলছেন, এপ্রিল মাসে করা একটি গবেষণায় দেখা গেছে, কমপক্ষে ১৩টি গাঁজা গাছে সিবিডি অতিরিক্ত পরিমাণে ছিল যা এসিই-টু পথ প্রভাবিত করে বাগকে শরীরে প্রবেশ করতে সাহায্য করে।

করোনাভাইরাস থামিয়ে দেয়ার ওষুধ পেয়েছেন বলে চাঞ্চল্যকর দাবি করলেন কানাডার একদল বিজ্ঞানী। দেশটির লেথব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক জানিয়েছেন, গাঁজার এক ধরনের স্ট্রেইনের সন্ধান পেয়েছেন তাঁরা, যার দ্বারা করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধ করা যেতে পারে।

শক্তিশালী স্ট্রেইনের গাঁজা মানবদেহে করোনাভাইরাসের প্রবেশ করাকে ৭০-৮০ শতাংশ পর্যন্ত আটকাতে পারে বলে তারা দাবি করেছেন। লেথব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা বলছেন, এপ্রিল মাসে করা একটি গবেষণায় দেখা গেছে, কমপক্ষে ১৩টি গাঁজা গাছে সিবিডি অতিরিক্ত পরিমাণে ছিল যা এসিই-টু পথ প্রভাবিত করে বাগকে শরীরে প্রবেশ করতে সাহায্য করে।

ওই গবেষকদেরই একজন ওলগা কোভালচুক বললেন, ‘প্রথমে বিষয়টি নজরে আসার পরই অবাক হয়ে যাই আমরা। পরে সত্যিই খুব খুশি হই।’

গবেষণায় আরও বলা হচ্ছে, গাঁজা আদতে অতিরিক্ত পরিমাণে ঈইউ নিষ্কাশন করতে পারে প্রোটিন ব্লক করে, যেগুলি কোষে ঢুকে পড়ার জন্য কোভিড-১৯ এর প্রবেশপথ। ওই বিজ্ঞানীদলের দাবি, গাঁজার এক ধরনের স্ট্রেইনের সন্ধান তাঁরা পেয়েছেন, যার দ্বারা করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধ করা যেতে পারে। এমনকী কোভিড-১৯ আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্যও কাজে আসতে পারে গাঁজার ওই শক্তিশালী স্ট্রেইন।

pic-google

তাদের গবেষণার ফলাফল অনলাইন জার্নাল প্রিপ্রিন্টসে লিপিবদ্ধ করে রাখা হয়েছে। সেখানে আরও বলা হচ্ছে, গাঁজা আদতে অতিরিক্ত পরিমাণে সিবিডি নিষ্কাশন করতে পারে প্রোটিন ব্লক করে, যেগুলি কোষে ঢুকে পড়ার জন্য কোভিড-১৯ এর প্রবেশপথ হিসেবে কাজ করে।

কোভালচুকের স্বামী ইগোর সিটিভিকে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে বলছেন, গাঁজা মানবদেহে এই ভাইরাসের প্রবেশ করাকে ৭০ শতাংশ পর্যন্ত আটকাতে পারে। সেক্ষেত্রে এই ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করার সুযোগ রয়েছে বলেও দাবি ইগোরের। এ ছাড়াও মুখ থেকে যে সমস্ত ভাইরাস শরীরে ঢুকতে পারে, তাদেরও রুখে দিতে পারে গাঁজা। মাউথ ওয়াশ এবং গার্গেল করার নানাবিধ প্রোডাক্টের মধ্যে গাঁজার শক্তিশালী স্ট্রেইন ব্যবহার করে তার ইতিবাচক ফলও পাওয়া গিয়েছে। কানাডার এই বিজ্ঞানী দলই সেই পরীক্ষা করে দেখেছিলেন।

তবে ওলগা কোভালচুক সিটিভি-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে আরও বলছিলেন, ‘দোকান থেকে কোনও ধরনের গাঁজা কিনলেই যে তা করোনার প্রতিষেধক হিসেবে কাজ করবে, এটা ভাবলে ভুল হবে।’ তাঁর কথায়, ‘কেবলমাত্র ৮০০ রকমের গাঁজার স্যাটাইভা রয়েছে, যা করোনার চিকিৎসায় সাহায্য করতে পারে।’

অবশ্য এই গবেষণার এখনও অবধি কোনও রিভিউ করা হয়নি। গাঁজার থেরাপি সংক্রান্ত রিসার্চ সংস্থা পাথওয়ে আরএক্সসহ দুটি কোম্পানির পার্টনারশিপে আপাতত লেথব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা এই পরীক্ষা চালাচ্ছেন। কোভিড-১৯ সংক্রমণ চিরতরে রুখতে গবেষণা চালিয়ে যাওয়ার জন্য অনুদানও চাইছেন এই গবেষকরা।

Source-Eisamay

আরও পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here