আরো পড়ুন

ফেসবুকে এক ভিডিয়ো তে কলকাতার জন্মদিন সম্পর্কে ভুল বার্তা দেওয়ায় অভিনেতা প্রসেনজিত চট্টোপাধ্যায় কে নোটিশ দিলো সুবর্ণ রায় চৌধুরী পরিবার। ঐদিন প্রসেনজিত একটি ভিডিয়ো পোস্ট করে তাতে কলকাতাবাসীদের জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানান। যা নিয়ে শূরু হয় শরগল।

আরো পড়ুন

প্রসেনজিত এর ফেসবুক পেজে এই পোস্ট দেখে সাথে সাথে ঐ পেজের অ্যাডমিন এর সাথে কথা বলেন সুবর্ণ রায় চৌধুরী পরিবার। যদিও ততক্ষনে সেই পোস্ট পৌঁছে গেছে লাখ লাখ দর্শকের কাছে। হাজার হাজার শেয়ার হয়েছে সেই পোস্ট। যদিও অভিযোগ আসার পর পেজে থেকে সেই পোস্ট ডিলিট করে দেওয়া হয় বলে জানা গিয়েছে,

সুবর্ণ রায় চৌধুরী পরিবারের মতে প্রসেনজিত এর মত এত বড় একজন সুপারস্টার এরকম ভুল খবর কেন ছড়াবেন? কলকাতা বাঙালীর ইমোশনের জায়গা, সেখানে থেকে এই শহর সম্পর্কে ভুল খবর ছড়ানোর মানে হয় না। এই জন্যে তাকে আইনি নোটিশ পাঠান সুবর্ণ রায় চৌধুরী পরিবার।

“এটা একটা ভুল ধারণা যে জব চার্নক ১৬৯০ সালের ২৪ আগস্ট কলকাতায় আসেন এবং শহরের পত্তন করেন। ২০০৩ সালের রায়ে কলকাতা হাইকোর্ট এই দাবি নস্যাৎ করে দিয়েছে। এর পরেও বিখ্যাত ব্যক্তিত্বরা যদি সোশ্যাল মিডিয়ায় এ রকম ভুল তথ্য পোস্ট করেন, তা হলে সব পরিশ্রম জলে যায়।”

প্রসেনজিত বলেন আমার টিমের কেউ ভুল করে এই পোস্ট করেছেন, আমি খবর পাওয়া মাত্র এই পোস্ট সরিয়ে ফেলার ব্যাবস্থা করেছি, আমি ইতিহাস কে শ্রদ্ধা করি, আমি ইচ্ছাকৃত ভাবে পোস্ট করিনি, শহরের প্রতি ভালোবাসা দেখানোর জন্যে পোস্ট টি করা।

কিন্তু জব চার্নক আদৌ কি কলকাতার প্রতিষ্ঠাতা? এ ভাবে কোনো ব্যক্তিবিশেষকে মহানগরীর প্রতিষ্ঠাতা হিসাবে চিহ্নিত করা যায়? আর ১৬৯০ সালকেও কি কলকাতার জন্মবর্ষ বলা যায়, বিশেষ করে যখন ১৬৯০-এর অনেক আগে থেকেই এই গ্রামগুলোর অস্তিত্ব ছিল? তা ছাড়া চার্নক নিজেও তো ১৬৯০-এর আগে দু’ বার এই অঞ্চলে পা রাখেন? তা হলে কেন ১৬৯০-কে জন্মবর্ষ হিসাবে বেছে নেওয়া হবে এবং কী যুক্তিতে চার্নককে ‘কলকাতার প্রতিষ্ঠাতা’ অভিধা দেওয়া হবে? এই সব প্রশ্ন ঘুরপাক খেতে থাকে ইতিহাসবিদদের মহলে।

আরো পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here